শুক্রবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

তরুণীকে গণধর্ষণ আটক ৩

84243_f3নারায়ণঞ্জের রূপগঞ্জে পর্যটন কেন্দ্রে বেড়াতে নিয়ে যাবার কথা বলে এক তরুণীকে গণধর্ষণ করা হয়েছে। এই ঘটনায় ৩ জনকে আটক করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার কায়েতপাড়া ইউনিয়নের পূর্বগ্রাম এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।
ধর্ষিতার মা জানান, তিনি কায়েতপাড়া ইউনিয়নের চনপাড়া ৮নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা। গত বৃহস্পতিবার বিকালে তার মেয়ে (১৭) ও মেয়ের বান্ধবী (১৮) বাসার আঙ্গিনায় বসে পাচগুটি খেলছিল। এ সময় পার্শ্ববর্তী বাড়ির রফিক মিয়ার মেয়ে মিনা আক্তার তাদের উভয়কে পার্শ্ববর্তী গ্রামের খান সাহেবের বাংলো বাড়িতে বেড়াতে যাবার প্রস্তাব দেয়। উপজেলার অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র খান সাহেবের বাড়িতে বেড়াতে যেতে তারা উভয়ে রাজি হয়ে যায়। সন্ধ্যার পর মিনা বান্ধবীকে বিদায় করে  দিয়ে আত্মীয়ের বাসায় যাবার কথা বলে উক্ত তরুণীকে  পূর্বগ্রাম সাকিনস্থ মৃত আবদুল জাব্বার ভূঁইয়ার ছেলে ওবায়দুল হকের ভাড়াটিয়া বাড়ির পুষ্পরানীর ঘরে নিয়ে যায়। এ সময় ওবায়দুল হক ও তার আত্মীয় একই গ্রামের মোজাম্মেল হকের ছেলে বাদশা ঘরে প্রবেশ করে। এ সময় তারা পুষ্পকে দোকান থেকে কোকাকোলা আনতে পাঠিয়ে দেয়। পরে মিনা নিজেই বাইরে থেকে দরজা বন্ধ করে দিয়ে পাহারা দিতে থাকে। এ সময় ওই তরুণীর হাত ও মুখ বেঁধে দুই বখাটে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা থেকে রাত পৌনে ১০টা পর্যন্ত ধর্ষণ করে। মারাত্মক অসুস্থ অবস্থায় মীনা টাকার প্রলোভন দেখিয়ে তরুণীকে বাড়িতে পৌঁছে দিলে সে তার বাবা মায়ের কাছে ঘটনা খুলে বলে। পরে তরুণীর আত্মীয়স্বজনরা থানা পুলিশের আশ্রয় নেয়। রাতেই পুলিশ বিভিন্ন স্থানে তল্লাশি করে ধর্ষণের ঘটনায় জড়িত ৩ জনকে আটক করেছে।
এ ব্যাপারে রূপগঞ্জ থানার ওসি ইসমাইল হোসেন বলেন, আমরা গণধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত সকলকে আটক করতে সক্ষম হয়েছে। থানায় নিয়মিত মামলা হয়েছে। ভিকটিমের ডাক্তারি পরীক্ষাও সম্পন্ন হয়েছে।

সর্বশেষ সংবাদ