রবিবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৭ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ পৌষ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

ঈদ-এ মিলাদুন্নবী (দঃ) উপলক্ষে গাউসিয়া কমিটি সিলেটের জশনে জুলুছ অনুষ্ঠিত

3 copyডেস্ক: গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ সিলেট জেলার উদ্যোগে পবিত্র ঈদ-এ- মিলাদুন্নবী (দ:)এর জশনে জুলুছ আনন্দ মিছিল ১২ রবিউল আওয়াল শনিবার সকাল ৯টায় হযরত শাহ্ জালাল (রহঃ)‘র মাজার থেকে বের করা হয়।
মিছিলটি দরগাহে হযরত শাহ্ জালাল (রহঃ)‘র মাজার থেকে চৌহাট্টা হয়ে লামাবাজার-শেখঘাট-তালতলা-বন্দরবাজার-জিন্দাবাজর-চৌহাট্টা-আম্বরখানা মোড় প্রদক্ষিন করে জালালাবাদ থানাধীন মইয়ারচর এলাকায় মাদরাসা-এ-তৈয়্যবিয়া তাহেরিয়া হেলিমিয়া সুন্নিয়া’য় এসে সমাবেশ, মিলাদ ও মোনাজাতের মাধ্যমে জশনে জুলুছে পবিত্র ঈদ-এ মিলাদুন্নবী (দঃ)‘র আনন্দ সমাপ্ত হয়। জশনে জুলুছে দেশ বরন্য নাত শিল্পি শায়ের নাত-এ রাসূল (দঃ) পরিবেশন করেন। সমাবেশ শেষে দেশ ও জাতির কল্যাণ কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়। মিলাদুন্নবী সরকারীভাবে পালন করায় সরকারের প্রতি ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন বক্তারা।
গাউছিয়া কমিটি বাংলাদেশ সিলেট জেলার সভাপতি আলহাজ্ব মিছবাহ উদ্দিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও মাওলানা নুরুল আমিনের পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ মাজার ফেডারেশন এর সিনিয়র সহ সভাপতি ১নং মোল্লারগাও ইউনিয়ন এর চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শেখ মখন মিয়া, হযরত শাহাজালাল (রাঃ ) মাজার শরীফ এর সাধারণ সম্পাদক ও খাদেম আলহাজ্ব শামুন মাহমুদ খান, মাদরাসা-এ-তৈয়বিয়া তাহেরিয়া হেলিমিয়া সুন্নিয়া’র অধ্যক্ষ মাওলানা জালাল উদ্দিন আল কাদেরী, মাদরাসা ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব আমির উদ্দিন আহমদ, বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্র সেনা কেন্দ্রীয় সাবেক সভাপতি নুরুল হক চিশতী, জালালাবাদ গ্যাস লি. এর সচিব সিরাজুল ইসলাম, লংকা বাংলা সিকিউরিটিজ লি. এর এজিএম মুহাম্মদ শামসুদ্দিন, সিলেট মহানগর শাখার সহ সভাপতি এ.এফ.এম শহিদুল ইসলাম সেলিম, গাউছিয়া কমিটি বাংলাদেশ সিলেট জেলার সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব হুশিয়ার আলী, সহ সভাপতি আলহাজ্ব মক্তার মিয়া,  মাদরাসা-এ-তৈয়বিয়া তাহেরিয়া হেলিমিয়া সুন্নিয়া’র শিক্ষক মাওলানা আনোয়ার হোসেন আনসারী, মাওলানা আজিজুর রহমান, মাওলানা তাজুল ইসলাম তাহেরী, শিক্ষক মোস্তফা তাহেরিয়া ছাত্র কল্যাণ পরিষদের সহ সভাপতি জুবায়ের আহমদ, সাধারণ সম্পাদক রকিব আহমদ,  মাসুক আহমদ, মিজানুর রহমান, সহ সাধারণ সম্পাদক সাহেদ আহমদ, লায়েক আহমদ, ফারুক আহমদ, কাশেম আহমদ, তাওহিদুল ইসলাম জুবায়ের, আফদ্বল আহমদ, আব্দুল কাইয়ূম মাসুম, ইমাম উদ্দিন, রইছ উদ্দিন প্রমুখ।
বক্তারা বলেন, পবিত্র ঈদ এ মিলাদুন্নবী উপলক্ষ্যে জসনে জুলুস আল্লাহ তায়ালার নিকট মকবুল এবাদত সমূহের মধ্যে অন্যতম একটি ইবাদত। রবিউল আউয়াল মাস আমাদের জন্য এক মহান বার্তা নিয়ে আসে। সে বার্তা সৃষ্টিকূলের জন্য অত্যন্ত আনন্দের। এ মাসে বিশ্ব মানবতার মুক্তির দিশারী, সৃষ্টিজগতের রহমত নবী মুহাম্মদ (দ:) দুনিয়ায় আগমন করেছিলেন। তাঁর জন্ম ও পুরো জীবন স্বতন্ত্র বৈশিষ্টমন্ডিত। তিনি জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে শান্তি, স¤প্রীতি প্রতিষ্ঠা ও সকলের যথাযথ অধিকার নিশ্চিত করে গেছেন। ভ্রাতৃত্ব ও মানবতার মহান আদর্শে উজ্জীবিত করেছেন গোটা মানব সমাজকে। ব্যক্তি জীবন থেকে শুরু করে রাষ্ট্র পরিচালনা পর্যন্ত সকল ক্ষেত্রে তাঁর দিক-নির্দেশনা রয়েছে। সে নির্দেশনা আমাদের পরিপূর্ণরুপে গ্রহণ করতে হবে। তাঁর আদর্শের আলোকে সুন্দর সমাজ বিনির্মাণে এগিয়ে আসতে হবে। মহানবী মুহম্মদ (দ:) আইয়ামে জাহেলিয়াতের অন্ধকার যুগ দূর করে অত্যাচার ও জুলুম-নির্যাতন বরণ করে সত্য এবং ন্যায়কে সুপ্রতিষ্ঠিত করেছিলেন। সমাজে অবহেলিত-নির্যাতিত, বঞ্চিত ও দুঃখী মানুষের সেবা, পরস্পরের প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শন, পরমতসহিষ্ণুতা, দয়া ও ক্ষমাগুণ, শিশুদের প্রতি দায়িত্ব এবং নারী জাতির মর্যাদা প্রতিষ্ঠায় মহানবী (দ:)-এর আদর্শ অতুলনীয় এবং তাই তিনি সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ মহামানব হিসেবে অভিষিক্ত।

সংবাদ শেয়ার করুন

সর্বশেষ সংবাদ

BengalTimesNews.com