রবিবার, ২০ মে ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

এড. গিয়াস উদ্দিনের নামে অপপ্রচারে বিশ্বনাথ আওয়ামী লীগের নিন্দা

index

গত ২৪ এপ্রিল দুপুরে বিশ্বনাথ প্রেসক্লাবে দ্বীপবন্দ গ্রামবাসীর নাম দিয়ে সংবাদ সম্মলনে বিশ্বনাথ উপজেলা আওয়ামী লীগের আইন সম্পাদক সিলেট বারের স্বনামধন্য তরুন আইনজীবি এডভোকেট গিয়াস উদ্দীনের নাম জড়িয়ে যে বক্তব্য দেয়া হয়েছে তার তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছে বিশ্বনাথ উপজেলা আওয়ামী লীগ। গতকাল বৃহস্পতিবার এক বার্তায় নেতৃবৃন্দ এ তথ্য জানান।

বিশ্বনাথ উপজেলা আওয়ামী লীগকে নিয়ে এটা একটা নতুন ষড়যন্ত্র! অতীতে যারা বিশ্বনাথ উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি নিয়ে নানামুখি ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ছিলেন তাদের ইন্দনে নতুন করে বিশ্বনাথ উপজেলা আওয়ামী লীগের আইন সম্পাদককে নিয়ে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে।
যে ৩৮ জন গ্রামবাসীর স্বাক্ষর দেখিয়ে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে তাদের ১১ জন বিষয়টি অস্বীকার করে বলেছেন, আমাদেরকে সালিশির কথা বলে স্বাক্ষর নেয়া হয়েছে, আমরা কোন সংবাদ সম্মেলনের জন্য স্বাক্ষর করিনি। বাকি অনেকেই বিষয়টি সম্পর্কে অবগত নন মর্মে জানিয়েছেন এবং তাদের স্বাক্ষর জাল করা হয়েছে বলে স্বীকার করেছেন।
যাদের পাশে বসিয়ে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে তাদের একজন জহুর আলী যিনি ইতিপূর্বে ডাকাতির মামলায় ১৭ বছরের সাজাপ্রাপ্ত হয়েছিলেন। সংবাদ সম্মেলনে আরও ছিলেন আখল এবং গয়াছ। যারা জগদীশপুরের মাস্টার নাজমুল ইসলামের বাড়ীতে সংঘঠিত ডাকাতির মামলা, বর্তমানে আদালতে চলমান মামলার আসামি। যার মামলা নং দায়রা ১১৩/১১।
আশ্চর্যজনক সত্য হলো লিখিত বক্তব্য যিনি পাঠ করেছেন তিনিও স্বীকার করেছেন তিনি বিষয়টি সম্পর্কে বিন্দু মাত্র অবগত নন। উপস্থিত সময় তাকে লিখিত বক্তব্য পাঠ করার অনুরোধ করলে তিনি তা পাঠ করেন।
সংবাদ সম্মেলনের পর বিষয়টি বিশ্বনাথ উপজেলা আওয়ামী লীগের নজরে আসলে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির নির্দেশে বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করে বিশ্বনাথ উপজেলা আওয়ামী লীগের আইন সম্পাদক এডভোকেট গিয়াস উদ্দীনের উপর আনিত অভিযোগের কোন ভিত্তি খুজে না পাওয়ায় বিশ্বনাথ উপজেলা আওয়ামী লীগ এই সংবাদ সম্মেলনে এডভোকেট গিয়াস উদ্দীনকে জড়িয়ে মনগড়া, অশালিন সংবাদ প্রচার করায় তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছে।
সাংবাদিক বন্ধুদের প্রকৃত সত্য বিশ্বনাথবাসীর সামনে তুলে ধরার জন্য বিশেষ ভাবে অনুরোধ করা যাচ্ছে। সেই সাথে প্রশাসনের কাছে জোর দাবী জানাচ্ছে সমাজের জঞ্জাল হিসেবে চিহ্নিত, আদালত থেকে সাজাপ্রাপ্ত অপরাধীরা যাতে সমাজের সম্মানিত ব্যক্তিদের এবং প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিদের নিয়ে নোংরামি না করতে পারে সে বিষয়ে দ্রুত আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার দাবী জানান।

সংবাদ শেয়ার করুন

সর্বশেষ সংবাদ

BengalTimesNews.com