মঙ্গলবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ পৌষ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

ব্রিটেনে রানির ঘরে অশান্তি, জায়ে জায়ে ঝগড়া!

13-2আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: বউ শাশুড়ি আর জায়ে জায়ে ঝগড়া কেবল টিভি সিরিয়ালের বিষয়, এমনটি ভাববেন না। বাস্তবেও এর ঢের উদাহরণ আছে। আর এবার ব্রিটেনের রানি এলিজাবেথের পরিবারেও নাকি গৃহদাহ শুরু হয়েছে। ঝগড়া চলছে তার দুই নাতবউ এবং প্রয়াত প্রিন্সেস ডায়ানার পুত্রবধূদের মধ্যেও।

বিয়ের অনেক আগে থেকেই নাকি বড় জা কেটের সঙ্গে বিশেষ ভাব নেই ছোট মেগানের। তবে রাজপরিবার বলে কথা। নিজেদের হাড়ির খবর এতদিন রেখেঢেকে রেখেছিল দু’পক্ষই। তবে সম্প্রতি স্ত্রী মেগানকে নিয়ে প্রিন্স হ্যারির কেনসিংটন প্রাসাদ ছাড়ার খবরে দুই জায়ের ‘চুলোচুলির’ খবর নিয়ে ফের তৎপর হয়েছে স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমগুলো। দুই জায়ের ঝগড়াঝাঁটি নাকি এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যে, বড়দিনও একসঙ্গে কাটাবেন না দুই ভাই।

ঘনিষ্ঠরা বলছেন, ঝগড়ার শুরুটা করেছিলেন ছোটবউ মেগানই, রাজপরিবারের বউ হয়ে আসার আগেই। কেটের এক পরিচারিকাকে কড়া কথা শুনিয়েই বড় জাকে বেজায় চটিয়েছিলেন মেগান। এ নিয়ে দুই জায়ের কথা কাটাকাটিও হয়। ঝগড়ায় স্ত্রী মেগানের হয়ে মুখ খোলেন হ্যারি। আর স্বামী উইলিয়ামকে পাশে পান কেট। এই ঘটনার পরে দূরত্ব বাড়ে দুই ভাইয়ের। রাজপরিবার সূত্রের দাবি, মেগানের বিয়ের প্রস্তুতির সময়ে তার ব্যবহারে কেঁদে ফেলেছিলেন কেট।

গত বছর বড়দিনের ঠিক আগেই হ্যারি অভিযোগ করেন, তার বড়ভাই ও ভাবি মেগানকে আপন করে নিতে পারছেন না। তখন দুই পুত্রবধূর ঝগড়া থামাতে ময়দানে নেমেছিলেন শ্বশুর চার্লস। স্যান্ড্রিংহামের প্রাসাদে দুই পক্ষকেই বড়দিন কাটানোর জন্য নিমন্ত্রণ করেন তিনি। কিন্তু তাতে লাভ হয়নি। কারণ, তার আগেই নাকি বেশ বড়সড় ঝগড়া হয়েছিল কেট ও মেগানের।

একটি ব্রিটিশ ট্যাবলয়েড বলছে, সেই তিক্ততা এড়াতে এবার বড়দিনে রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের সঙ্গে স্যান্ড্রিংহামে ছুটি কাটাবেন মেগান আর হ্যারি।আর বড়দিনের ছুটি কাটাতে কেট যাবেন বাপের বাড়ি বার্কশায়ারে।যদিও এই খবর উড়িয়ে দিয়েছে রাজপরিবার।

সর্বশেষ সংবাদ