বুধবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৮ খ্রীষ্টাব্দ | ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ |

এবার সেক্স আশরাফুলের হাত ধরে ইউরোপের পথে সিলেটের তানিয়া

12966402_1176827792347930_1570850259_nঅপহরনের পর পাচার হওয়ার পথে সিলেটের আলোচিত গৃহবধু তানিয়া। প্রবাসী আশরাফুল ইসলাম ওরফে সেক্স আশরাপুলের হাত ধরে লন্ডন যাবেন তিনি। কথিত পিতা আতাউর রহমানকে ম্যানেজ করেই তাকে দেশের বাইরে পাচার করে দেয়া হচ্ছে। এখবরে চরম উদ্বেগ-উৎকণ্ঠায় তার স্বামী ও শশুর পরিবার। তানিয়া পাচার রোধে স্বামী জাকির হোসেন দীপু শিগগিরই আদালতের শরনাপন্ন হবেন। এমন তথ্য নিশ্চিত করেছে একটি সূত্র।
অভিযোগে প্রকাশ, পরকীয়ার সূত্র ধরে এ বছরের ২১ফেব্র“য়ারী অপহৃত হয় গৃহবধু তানিয়া আক্তার আখি। এ ঘটনায় সিলেটের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের মাধ্যমে ৩১ মার্চ সিলেট কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা হয়।
মামলায় স্বামী জাকিরের বন্ধু জয়নাল আবেদীন ওরফে অভিকে এজাহারভুক্ত করে এজাহারগর্ভে আরো জনকে আসামী করা হয়। তদন্তে চলে আসে জয়নালের সহযোগী কবির আহমদ সোহেল ও যুক্তরাজ্য প্রবাসী আশরাফুল ইসলাম ওরফে সেক্স আশরাফুলের নাম। মামলার পর গত ৪ এপ্রিল সিলেটে ওসমানী মেডিকল কলোনীর একটি বাসা থেকে তানিয়াকে উদ্ধার করে পুলিশ। আদালতে হাজির করা হলে আদারত তাকে তার কথিত পিতা আতাউর রহমানের জিম্মায় প্রদান করেন।
কিন্তু পরে বেরিয়ে আসে ঘটনার মূলে থাকা বিরল তথ্য। অপহরনের পর উচ্চাভিলাশী তানিয়াকে বেশীদিন ধওে রাখতে রাখতে পারেনি জয়নাল। তাই তাকে বিয়েপাগল আশরাফুল ৗরপে সেক্স আশরাফুলের কাছে বিক্রি করে দেয়। ধনাঢ্য আশারাফুল তাকে বাগিয়ে নিয়ে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে তানিয়ার পিতাকে ম্যানেজ করে নেয়। স্বপ্নপুরী লন্ডন নিয়ে যাওয়ার প্রলোভনে তাকে ভোগ করতে থাকে আশরাফুল।
ইউরোপ বা মধ্যপ্রাচ্যেও কোন দেশে যৌনদাসী বানিয়ে পাচারের চেষ্টা করছে আশরাফুল। এ লক্ষ্যে ইতোমধ্যে তানিয়ার একটি পাসপোর্ট করে নেয়া হয়েছে একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র জানিয়েছে। পাসপোর্টে তানিয়া স্পাউট হিসেবে কারো নাম দেয়া হয়েছে না অবিবাহিত দেখানো হয়েছে তা এখনো জানা যায়নি। তবে তানিয়া আদালতে জাকির হোসেন দীপুকে তার স্বামী ও জয়নালের সাথে হোটেলে ছবি তোলার কথা াবলীলায় স্বীকার করেছে।
সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কর্মচারী (বাবুর্চি) আতাউর রহমানের মেয়ে তানিয়াকে বছর দেড়েক আগে বিয়ে করেন জাকির হোসেন দীপু। বিয়ের পর দীপুর বন্ধু জয়নালের সাথে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়ে তানিয়া। সম্প্রতি নগরীর ময়রুন নেছা হোটেলে তানিয়া ও জয়নাল উঠলে জনতার হাতে ধরা পড়্ ।ে জনতা জয়নালকে উত্তম মধ্যম দিয়ে তাদের ছেড়ে দেয়। বিষয়টি পারিবারিকভাবে সমাধান হওয়ার পর তানিয়া আবার স্বামী দীপুর ঘওে ফিরে। পর গত ২১ফেব্রয়ারী রাতে দীপুর বাসা থেকে তানিয়াকে অপহরন করে নেয় জয়নাল ও তার সহযোগিরা।
এঘটনায় জাকির হোসেন দীপু গত ২৫ফেব্র“য়ারী জয়নাল আবেদীন অভিসহ অজ্ঞাতনামা কয়েকজনকে আসামী করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে একটি দরখাস্ত মামলা করেন। আদালতের নির্দেশে সিলেট কোতোয়ালি পুলিশ গত ৩১মার্চ মামলাটি রেকর্ডে নিয়ে ৪এপ্রিল তানিয়াকে উদ্ধার করে। তবে এ মামলায় এজাহারভুক্ত আসামী জয়নাল ও তার সহযোগিরা এখনো পলাতক রয়েছে।
সূত্রঃ সিলেট নিউজক্লাব

সর্বশেষ সংবাদ